প্রথমপাতা ইতিহাস-ঐতিহ্য চবি ঝরণার ইতিকথা

চবি ঝরণার ইতিকথা

81
0

 

মেহেদী হাসান, চবি:
প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত   চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় । নানা প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর এই ক্যাম্পাস। বিভিন্ন প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এর ভিতর অন্যতম হলো চবির ঐতিহ্যবাহী ঝরণা।

ক্যাম্পাসে নতুন আসা প্রতিটি শিক্ষার্থীর মন একবার হলেও এই ঝরণার পানে চায়। চবি ঝরণা চবির সৌন্দর্যকে কয়েক গুন বৃদ্ধি করেছে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়  এর কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ঠিক পিছন দিক দিয়ে কিছু দূর এগিয়ে গেলে দেখা মেলে এই ঝরণার। প্রকৃতি প্রেমী মানুষের কাছে এই জায়গাটি খুবই প্রিয়। এটির উৎপত্তি স্থল দূর পাহাড়ে। পাহাড় থেকে ছোট অগভীর নালা দিয়ে পানি এসে এই স্থানে এসে ঝরণার আকার ধারণ করে। ঝরণাটি আকারে বিশাল নয়। এটির উচ্চতা আনুমানিক চার মিটার এবং প্রশস্ততা হবে আনুমানিক এক মিটার। পাহাড়ের ভেতর থেকে অস্বচ্ছ পানি নালা বেয়ে গড়িয়ে এসে আবার ঝরণা থেকে পতিত হয়ে নালা বেয়ে চলে যায় ক্যাম্পাসের বাইরে।

বছরের প্রায় সব সময় এই ঝরণাটিতে পানির দেখা পাওয়া যায়। কিন্তু বর্ষা কালে পানির পরিমান অপেক্ষাকৃত বেশি থাকে। পাহাড়ী অঞ্চলের মাঝে এই রকম দৃশ্য চোখে পড়ার মত। প্রিয়জন দের সাথে সুন্দর একটি বিকাল পার করার জন্য চবি ঝরণার তুলনা নেই।এক জায়গাতে দাঁড়িয়ে এক দিকে উপভোগ করা যায় জলপ্রপাত এর দৃশ্য অন্য দিকে পাহাড়ে ঘেরা সবুজের সমারোহ।
প্রতিটি সুন্দর জিনিসের কিছু ভয়ংকর দিক থাকে। চবি ঝরণার ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। ২০১৫ সালে এই ঝরণা কেড়ে নেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীর প্রাণ।বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এই স্থান পরিদর্শন বন্ধ করলেও তা বেশি দিন আটকে রাখা যায়নি।

এমএ/আর এন

আপনার অভিমত/মন্তব্য জানাতে পারেন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্যটি লিখুন
অনুগ্রহ করে এখানে আপনার নাম লিখুন