প্রথমপাতা চট্টগ্রাম এক নজরে চবির এ এফ রহমান হলের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রভোস্ট খসরুল আলম কুদ্দুসী

এক নজরে চবির এ এফ রহমান হলের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রভোস্ট খসরুল আলম কুদ্দুসী

549
0

চবি প্রতিনিধি:

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এ এফ রহমান হলের নতুন প্রভোস্টের দায়িত্ব পেয়েছেন  লোকপ্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক ড. কাজী এস এম খসরুল আল কুদ্দুসী। গত মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) আগামী এক বছরের জন্য তাঁকে এ দায়িত্ব দেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্চিত সিনেট সদস্যও। এর আগেও গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকটি দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। এছাড়া দেশের  প্রথম সারির কয়েকটি ইংরেজি জাতীয় দৈনিকে নিয়মিত কলাম লেখেন তিনি।

এক নজরে  অধ্যাপক ড. কাজী এস এম খসরল আলম কুদ্দুসী…

পারিবারিক ও রাজনৈতিক অবস্থান:

কাজী এস এম খসরল আলম কুদ্দুসী  আওয়ামী পরিবারের গর্বিত উত্তরাধিকার। তাঁর পিতা  এস এম ঈসমাইল ১৯৬৭ থেকে ৭৪ সাল পর্যন্ত চট্টগ্রাম জেলার বোয়ালখালী উপজেলার পোপাদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এছাড়া বঙ্গবন্ধু আমলে(১৯৭৪ সালের জানুয়ারী) পোপাদিয়া ইউনয়ন আওয়ামীলীগের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তার শ্বশুর একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং এবং বাংলাদেশ সরকারের উপ সচিব ছিলেন।

কুদ্দুসী ১৯৯০ সালে চট্টগ্রাম সরকারি মুসলিম হাই স্কুল থেকে এসএসসি ও ১৯৯২ সালে চট্টগ্রাম সরকারি সিটি কলেজ (ছাত্রলীগ নিয়ন্ত্রিত) থেকে এইচ এসসি পাশ করেন। স্কুল ও কলেজ জীবনে প্রগতিশীল ধারার সমর্থক  ছিলেন। পরে ১৯৯৩ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি হওয়ার পর রাজনীতিতে মনস্ক হন। জামাত- শিবির বিরোধী অবস্থানের জন্য তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র শিবিরের রোষানলে পড়েন এবং ১৯৯৫ সালে শাহ আমানত হলে শিবির কর্তৃক নিগৃহীত হন।

একাডেমিক অর্জন:

তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগ থেকে মাস্টার্সে প্রথম শ্রেণীতে প্রথম এবং অর্নাসে প্রথম শ্রেণীতে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেন। পরে ২০০১ সালের (আওয়ামীগ আমলে) বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগে যোগদান করেন। ২০০৪ সালে চবি থেকে ইলেকট্রনি গভর্নেন্স বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। তাঁর পিএইচডি থিথিসে রয়েছে  আওয়ামী লীগ সরকারেরর আইসিটি উদ্যোগ সমূহের ডকুমেন্টেশন ও বিশ্লেষণ। এলএলবি ডিগ্রিও রয়েছে তাঁর। দেশীয় ও আন্তর্জাতিক জার্নাল/বইয়ে তাঁর গবেষণা সংখ্যা ৫২টি। তিনি বেশ কয়েকটি আন্তর্জাতিক সেমিনারে যোগদান করেছেন এবং আন্তর্জাতিক জার্নালের এডিটোরিয়াল বোর্ডের সদস্য। এছাড়া তিনি বেশ কয়েকজন ছাত্র-ছাত্রীর  উচ্চতর ডিগ্রির গবেষণা তত্ত্বাবধায়ক।

গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বগ্রহণকাল:

তিনি ২০১০ থেকে ২০১৩ সারৈর লোকপ্রশাসন বিভাগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে নির্বাচিত সিনেট সদস্য। ২০১৫ সালের বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে  চবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন।  তিনি ২০১০ -২০১২ সালের সরকারি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের জন্য  শীর্ষ সংস্থা বাংলাদেশ  লোকপ্রশাসন প্রশিক্ষন কেন্দের বোর্ড অব গভর্নরসের সদস হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি লোকপ্রশাসন বিভাগের চেয়ারম্যান থাকাকালে তাঁর নেতৃত্বে ২০১৩ সালের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে লোকপ্রশাসন বিভাগের উদ্যোগে দেশে লোকপ্রশাসন বিভাগ সমূহের মধ্যে এযাবৎ কালের  সবচেয়ে বড়  আন্তর্জাতিক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

সামাজিক দায়বদ্ধতা:

ইংরেজিতে লিখতে বেশী স্বাচ্ছন্যবোধ করেন তিনি।  ২০০৬ সাল থেকে বাংলাদেশের জাতীয় ইংরেজি সংবাদপত্র ( ডেইুল স্টার, অবজারভার, ইনডিপেন্ডেন্ট, নিউ এজ ও ডেইলি সান) কলাম লিখছেন। বাংলা পত্রিকায়ও তিনি  কিছু নিবন্ধন লিখেছেন। বিভিন্ন দৈনিকে এ পর্যন্ত ৩৭০ টি কলাম প্রকাশিত হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে তিনি  ডেইলি সান পত্রিকায় ‘ ডাউন টু আর্থ’ শিরোনামে একটি নিয়মিত কলাম লিখছেন। যা প্রতি মঙ্গলবার প্রকাশিত হয়।

২০০৬ সালে  বিএনপি জামাত আমলে এবং পরবর্তী  তত্ত্বাবধায়ক  সরকারের আমলে তিনি তৎকালীন বিএনপি-জামাত সরকারের দুঃশাসন ও তত্ত্বাবধায়ক  সরকারের বাড়াবাড়ি বিশেষ করে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে গ্রেপ্তার ও হয়রানী করার বিরুদ্ধে এবং শেখ হাসিনার রাজনৈতিক  দর্শনকে সমর্থন কওে ডেইলি স্টারসহ বিভিন্ন জাতীয় ইংরেজি দৈনিকে বেশ কয়েকটি সাহসী কলাম লিখেন। এ মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধ, গণতন্ত্র, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও  জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি অগাধ শ্রদ্ধা ও আস্থার প্রতিফলন ঘটান। ২০০৬ থেকে  আজ অবধি প্রগতিশীলতা  ও উন্নয়ন-সমুদ্ধির পক্ষে সোস্যাল মিডিয়ায়ও তাঁর সরব উপস্থিতি বিদ্যমান।

রাজনৈতিক অঙ্গীকার:

২০০১ সাল থেকে কাজী এস এম খসরল আলম কুদ্দুসী চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয়তাবাদ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্ধুদ্ধ প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের (হলুদ দল) স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০১১ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত হলুদ দলের সম্বনয়কের দায়িত্ব পালনকালের উক্ত দলেরর মনোনিত প্রার্থীরা প্রায় প্রত্যেকটি পর্যদে  নিরস্কুশ বিজয় লাভ করেন। বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনসহ বঙ্গবন্ধু পরিষদ চট্টগ্রাম জেলা শাখারর সেমিনারের এবং অন্যান্য সভা- সমিতিতে নিয়মিত বক্তা হিসেবে প্রগতিশীলতা ও অসাম্প্রদায়িকতার চর্চা ও প্রতিপালনে  সক্রিয়ভাবে যুক্ত রয়েছেন।

এছাড়াও, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল ও চট্টগ্রাম মুসলিম এডুকেশন সোসাইটির জীবন সদস্য এবং ‘কালের কণ্ঠ শুভসংঘ’ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে আছেন।

 

 

 

 

 

 

 

আপনার অভিমত/মন্তব্য জানাতে পারেন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্যটি লিখুন
অনুগ্রহ করে এখানে আপনার নাম লিখুন