প্রথমপাতা কৃষি ও প্রকৃতি ফাগুনের হাওয়া বইছে চবির বায়ুমণ্ডলে

ফাগুনের হাওয়া বইছে চবির বায়ুমণ্ডলে

64
0

মেহেদী হাসান,চবি: শীতের শেষে এসেছে বসন্ত। পহেলা ফাল্গুন আজ। সারাদেশের মানুষ আজ ব্যস্ত বসন্তকে বরণ করে নেওয়ার জন্য। বাদ পড়েনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়(চবি) ও। শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছিল উৎসবের আমেজ। মনে হচ্ছিল যেন চবির বায়ুমণ্ডলে ফাগুনের হাওয়া বইছে।

১৫৮৫ সালে মোঘল সম্রাট আকবর বসন্ত উৎসবের প্রবর্তন করেছিলেন। এরপর থেকে এই উৎসব পালন করে আসছে বাঙালিরা। কালের বিবর্তনে এ দিনটি হয়ে দাড়িয়েছে বাঙালি সংস্কৃতির এক অবিচ্ছেদ্য অংশে।

চবিতে নানা আয়োজনে পালন করা হয়েছে দিনটি। মেয়েরা সেজেছিল হলুদ আর সবুজ শাড়িতে ছেলেরা হলুদ পাঞ্জাবিতে।মেয়েদের মাথায় ছিল বিভিন্ন রকমের ফুলের ব্যান্ড। পহেলা ফাল্গুনের আগমনকে স্বাগত জানিয়ে আনন্দ শোভাযাত্রা করেছে বিভিন্নি ইন্সটিটিউট ও বিভাগের শিক্ষার্থীরা পাশাপাশি বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো আয়োজন করেছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের।

লাবণ্য নিয়ে প্রকৃতিতে হাজির হয়েছে ঋতু রাজ বসন্ত। প্রেমিক যুগলদের জন্য হৃদয় রাঙানোর অনন্য দিন এটি। তাই ২১’শ একরের ক্যাম্পাসে তাদের বিচরণ ছিল বেশি। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী ছাড়াও পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে ছুটে এসেছিল কিশোর-কিশোরী ও তরুণ-তরুণীরা। পহেলা ফাল্গুনকে বিশেষভাবে উদযাপন করবে বলে।

ইতিহাস বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী জুবায়ের আহমেদ বলেন, শুরু হলো বসন্ত। বসন্তের আগমনীতে মনে পড়ে কবির চিরায়ত বাণী ‘ফুল ফুটুক আর না ফুটুক, আজ বসন্ত’ অথবা ‘আহা, আজি এ বসন্তে, এত ফুল ফোটে, এত বাঁশি বাজে, এত পাখি গায়’।

কবির ছন্দে ছন্দ মিলিয়ে তিনি বলেন,দক্ষিণা দুয়ার খুলে দিয়েছে প্রকৃতি,বইছে ফাগুনের হাওয়া,বসন্তের আগমনে কোকিল গাইছে গান,গাছে গাছে পলাশ আর শিমুলের মেলা’।

 /এএইচএস

আপনার অভিমত/মন্তব্য জানাতে পারেন

অনুগ্রহ করে আপনার মন্তব্যটি লিখুন
অনুগ্রহ করে এখানে আপনার নাম লিখুন